ভ্রমণবন্ধু

নলডাঙ্গা রাজবাড়ি মন্দির - Hosted By

Not review yet
2
Add Review Viewed - 138

ঝিনাইদহের নলডাঙ্গা রাজ্য রক্ষায় এক সময় ছিল সৈন্যবাহিনী। রাজপ্রাসাদ রক্ষায় চারদিকে খনন করা হয়েছিল পরিখা। রাজার জীবন বাঁচাতে বেগবতী নদীর ভেতর তৈরি করা হয়েছিল গোপন সুড়ঙ্গ পথ। আজ তার কিছুই নেই। সব ধ্বংস হয়ে গেছে। কিন্তু ঝিনাইদহ জেলার নলডাঙ্গা ইউনিয়নে নলডাঙ্গা গ্রামে আটটি মন্দির এখনো কালের সাক্ষী হয়ে টিকে আছে।

ইতিহাস থেকে জানা যায়, প্রায় ৫০০ বছর আগে ফরিদপুরের তেলিহাট্টি পরগনার অধীন ভবরাসুর গ্রামে বসবাস করতেন ভট্টনারায়ণ। তারই উত্তরসুরি বিষ্ণুদাস হাজরা ঝিনাইদহের নলডাঙ্গার রাজবংশ প্রতিষ্ঠা করেন। তার বাবার নাম ছিল মাধব শুভরাজ খান। বৃদ্ধ বয়সে বিষ্ণুদাস ধর্মের প্রতি বিশেষ অনুরাগী হয়ে সন্ন্যাসী হন এবং ফরিদপুরের ভবরাসুর থেকে ঝিনাইদহের নলডাঙ্গার কাছে খেড়াসিং গ্রামে এসে বেগবতী নদীর তীরে এক জঙ্গলে তপস্যা শুরু করেন।

১৫৯০ সালে মোগল সুবেদার মানসিংহ নৌকাযোগে বেগবতী নদী দিয়ে রাজধানী রাজমহলে যাওয়ার পথে তার সৈন্যরা রসদ সংগ্রহে বের হন। এ সময় জঙ্গলে তপস্যারত বিষ্ণুদাস সন্ন্যাসী সৈন্যদের রসদ সংগ্রহ করে দেন। এতে সুবেদার মানসিংহ খুশি হয়ে বিষ্ণুদাস সন্ন্যাসীকে পাশের পাঁচটি গ্রাম দান করেন। এ গ্রামগুলোর সমন্বয়ে প্রথমে হাজরাহাটি জমিদারি এবং পরে নলডাঙ্গা রাজ্য প্রতিষ্ঠিত হয়। তখন এ এলাকাটি নলখাগড়া ও নটা উদ্ভিদে পরিপূর্ণ ছিল বলে পরিচিত হয় নলডাঙ্গা নামে।

এরপর প্রায় ৩০০ বছর এ বংশের বিভিন্ন শাসক রাজ্যটি শাসন করেন। ১৮৭০ সালে রাজা ইন্দুভূষণ যক্ষ্মা রোগে মারা গেলে তার নাবালক দত্তক ছেলে রাজা বাহাদুর প্রমথভূষণ দেবরায় রাজ্যের দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। তিনি এখানে প্রতিষ্ঠা করেন আটটি মন্দির। ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ শহর থেকে ৩ কিলোমিটার উত্তরে নলডাঙ্গায় ১৬৫৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় কালীমাতা মন্দির, লক্ষ্মী মন্দির, গনেশ মন্দির, দুর্গা মন্দির, তারামনি মন্দির, বিঞ্চু মন্দির, রাজেশ্বরী মন্দিরসহ সুদৃশ্য আটটি মন্দির। এরই মধ্যে স্থানীয়দের সাহায্য ও জেলা পরিষদের আর্থিক সহযোগিতায় শ্রীশ্রী সিদ্ধেশ্বরী মন্দির, কালীমাতা মন্দির, লক্ষ্মী মন্দির, তারা মন্দির, বিষ্ণু মন্দির সংস্কার করা হয়েছে।

১৯৫৫ সালে এক সরকারি আদেশে অন্যান্য জমিদারীর মতো এই জমিদারীও সরকারের নিয়ন্ত্রণে চলে যায় এবং রাজবংশ শেষবারের মতো লোপ পায়। বর্তমানে এই আটটি মন্দিরও সরকারের তত্ত্বাবধানে রয়েছে।

Tags

Add Reviews & Rate

You must be logged in to post a comment.

Sign In ভ্রমণবন্ধু

For faster login or register use your social account.

or

Account details will be confirmed via email.

Reset Your Password