ভ্রমণবন্ধু

ইতিহাসের স্বাক্ষি ষাটগম্বুজ মসজিদ - Hosted By

(1 reviews)
3
Add Review Viewed - 270

প্রাচীন ইতিহাস আর ঐতিহ্য সম্পর্কে জানতে চাইলে ঘুরে আসতে পারেন খুলনার বাগেরহাট থেকে। এখানে রয়েছে ইতিহাসের স্বাক্ষ্য বহনকারী ষাটগম্বুজ মসজিদ। এছাড়া খোলামেলা এই এলাকায় ঘুরে বেড়াতেও আপনার মন্দ লাগবে না।

পনেরশ’ শতকের প্রথমার্ধে ‘খালিফাতাবাদ’ নামে গড়ে ওঠা এই জনপদটিই বর্তমানে ‘বাগেরহাট’ নামে পরিচিত। এখানে রয়েছে ইতিহাসের অন্যতম নিদর্শন ষাটগম্বুজ মসজিদ। এটি খান জাহান আলী নামে এক সুফিসাধক ও যোদ্ধার নির্মিত এক শহরের অংশ। মসজিদটি দেখলে আলাদা এক প্রশান্তি ও আনন্দের ভাব জেগে উঠবে আপনার ভেতরে। ওয়ার্ল্ড হেরিটেজের অংশ হিসেবে এখন দেশি-বিদেশি বহু পর্যটক প্রতিদিন ভিড় জমাচ্ছে এখানে। তাহলে আপনি কেন ঘরে বসে থাকবেন?

ধারণা করা হয়, পনের শতাব্দিতে সাধক খান জাহান আলী এটি নির্মাণ করেন। এই মসজিদটি বহু বছর ধরে অনেক টাকা খরচ করে নির্মাণ করা হয়েছিল। পাথরগুলো আনা হয়েছিল রাজমহল থেকে। মসজিদের ভেতরে ৬০টি স্তম্ভ বা পিলার আছে। এগুলো উত্তর থেকে দক্ষিণে ছয় সারিতে অবস্থিত এবং প্রত্যেক সারিতে ১০টি করে স্তম্ভ আছে। প্রতিটি স্তম্ভই পাথর কেটে বানানো। শুধু ৫টি স্তম্ভ বাইরে থেকে ইট দিয়ে ঢেকে দেয়া হয়েছে। এই ৬০টি স্তম্ভ ও চারপাশের দেয়ালের ওপর তৈরি করা হয়েছে গম্বুজ। নামে ষাট গম্বুজ হলেও এই মসজিদে গম্বুজের সংখ্যা ৮১।

অন্যসব পুরাকৃর্তীগুলোর মত এই ষাটগম্বুজ মসজিদ কিন্তু পরিত্যক্ত হয়ে যায়নি। এখনো পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়তে মুসল্লিরা এখানে আসছেন। এছাড়া দূর-দূরান্ত থেকে আসছেন পর্যটকরাও। সেই পনেরশ’ শতক থেকে খান জাহান আলী, তার যে রাজত্ব ছিল সেটার যে মূল প্রাণকেন্দ্র ছিল ষাটগম্বুজ মসজিদ। মসজিদটি এখনও তার সেই প্রাণ ঠিকই ধরে রেখেছে।

স্থাপত্যিক নিদর্শন হিসেবে ও বিশ্বজনীন গুরুত্ব থাকায় ১৯৮৫ সালে মসজিদটিকে ইউনেসকো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হয়। প্রায় ৬০০ বছরের পুরোনো এই মসজিদের কথা ছোটবেলায় পাঠ্যবইয়ে সবারই পড়া। তারপরও পোড়ামটির গাথুঁনিতে লতা-পাতা, কারুকার্যময় পনের শতকের এই স্থাপত্যটি যে বিশাল ঐতিহ্য ধরে রেখেছে, সেটি দেখতে নিশ্চই একদিন যাবেন বাগেরহাটে।

Listing Features

Tags

Items Reviewed - 1

Ali Faisal Dip

Ali Faisal Dip

নাম ষাট গম্বুজ হলেও গম্বুজ আসলে একাশিটি, গুনে দেখতে হলে যেতে হবে।

February 16, 2019 7:50 pm

Add Reviews & Rate

You must be logged in to post a comment.

Sign In ভ্রমণবন্ধু

For faster login or register use your social account.

or

Account details will be confirmed via email.

Reset Your Password