ভ্রমণবন্ধু
রিসোর্ট Now Opening

শমসের গাজীর বাঁশের কেল্লা রিসোর্ট - Hosted By

Not review yet
4
Add Review Viewed - 366

ফেনীর এক হতদরিদ্র ঘরের সন্তান শমসের গাজী। রূপকথার মতো শমসের গাজীর উত্থান। তার শৌর্য-বীর্যের কারণে ইতিহাসের পাতায় স্থান পেয়েছেন ভাটির বাঘ খ্যাতিতে।

সামন্ত প্রভু ও ভূস্বামীদের দোর্দণ্ড প্রতাপের সময় নির্যাতিত প্রজাদের সংঘবদ্ধ করে সম্মুখ সমরে শামিল করিয়েছিলেন তিনি। মহাবিক্রমশালী ত্রিপুরা রাজকে সেই ১৭০০ শতাব্দীতে পরাজিত করে রাজ্য গঠন করেছিলেন। আলোড়ন তুলেছিলেন সমগ্র অবিভক্ত ভারতে।

শমসের গাজী বেশ কয়েকটি সম্মুখযুদ্ধে স্থানীয় জমিদার ও পরে আগরতলা মহারাজকে পরাজিত করে ত্রিপুরা সিংহাসনে বসেন। ১৭৫০ থেকে ১৭৬১ সাল পর্যন্ত। মাত্র এ ক’টি বছরে তিনি ফেনী ও সন্নিহিত এলাকায় প্রজাদের সুবিধার্থে খনন করেন বেশ কয়েকটি দীঘি, নির্মাণ করেন রাস্তাঘাট এবং বন্যানিয়ন্ত্রণে ফেনী নদীর বাঁধ। বাঁধ নির্মাণ করে বন্যানিয়ন্ত্রণের চেষ্টাকে সে যুগের জন্য একটি ঐতিহাসিক চিন্তা বলে ইতিহাস পাঠে জানা যায়।

ব্রিটিশ বিরোধী বিপ্লবী এবং ত্রিপুরার রোশনাবাদ পরগনার কৃষক বিদ্রোহের নায়ক ছিলেন শমসের গাজী। ১৭৫৭ সালে ব্রিটিশ ঐপনিবেশিক শক্তির আগ্রাসন প্রতিহত করতে গিয়ে মৃত্যু বরণ করেন তিনি ভাটির বাঘ বলে পরিচিত। নবাব সিরাজউদ্দৌলার পর শমসের গাজীই ঔপনিবেশিক শক্তির হাতে প্রথম নিহত হন।

ইতিহাস থেকে জানা যায়, তৎকালীন ত্রিপুরা রাজা কৃষ্ণ মানিক্য বাহাদুর শমসের গাজীর পতনের পর তার রাজপ্রাসাদসহ সব স্থাপনা হিংসার বশবর্তী হয়ে গুঁড়িয়ে দিয়েছিলেন। আজও চম্পকনগর পাহাড়ে তার প্রাসাদের ভগ্নাংশ দেখতে পাওয়া যায়। শমসের গাজীর বংশধররা আজও ওই এলাকার সোনাপুর গ্রামে বাস করছেন।

ফেনীর ছাগলনাইয়ার চম্পকনগর ও জগন্নাথ সোনাপুরের বর্তমান ভারত সীমান্ত এলাকাটি শমসের গাজীর স্মৃতি বিজড়িত স্থান। এখানে রয়েছে শমসের গাজীর সুড়ঙ্গ, শমসের গাজীর দীঘি এবং আরো অনেক কিছু। তবে তার প্রাসাদসহ অন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার ধ্বংসাবশেষ ভারতের ত্রিপুরার মধ্যে ভাগ হয়ে রয়ে গেছে।

শমসের গাজীর তৈরি দূর্গটি এখন বিলুপ্ত। কিন্তু সেখানে তার স্মৃতিবিজড়িত অনেক কিছুই এখনো অবশিষ্ট রয়েছে। তার তৈরি কৈয়্যারা দিঘী, গুপ্ত সুড়ঙ্গ তার মধ্যে অন্যতম। বর্মানে তার স্মৃতিকে ধরে রাখতে সেখানে ‘শমসের গাজীর বাঁশের কেল্লা রিসোর্টস’ নামক পর্যটন কেন্দ্র স্থাপিত হয়েছে। ফেনী জেলার ছাগলনাইয়া উপজেলার চম্পকনগর গ্রামে এই রিসোর্টটি অবস্থিত।

নির্শাণ শৈলী ও বিনোদনের অন্যতম মাধ্যম এই রিসোর্ট এখন ভ্রমণ প্রিয় মানুষদের কাছে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। সম্পূর্ণ বাঁশের তৈরি এই রিসোর্টটিতে রয়েছে থাকা-খাওয়ার সুব্যবস্থা। রয়েছে ফেনী নদী ভ্রমণের জলযান। দেশের নানা প্রান্ত থেকে অনেক পর্যটকই এখানে ভ্রমণে আসেন।

যেভাবে যাবেন:

দেশের যেকোনো প্রান্ত থেকে সড়ক পথে এসে বারইয়ারহাট নামতে হবে। এরপর রামগড় রোড দিয়ে করেরহাট বাজার পেরিয়ে শুভপুর বাজারে গেলেই সোজা পূর্বদিকে একটি সরু সড়ক বেয়ে প্রায় ৩ কিলোমিটার সড়ক পার হলেই পেয়ে যাবেন ‘শমসের গাজীর বাঁশের কেল্লা রিসোর্টস’।

বারইয়ারহাট থেকে সিএনজি অথবা অটোরিকশা করে এই রিসোর্টে যাওয়া যায়। এছাড়া ফেনী শহর থেকে ছাগলনাইয়া হয়েও ‘শমসের গাজীর বাঁশের কেল্লা রিসোর্টস’ যাওয়া যায়।

Tags

Add Reviews & Rate

You must be logged in to post a comment.

Sign In ভ্রমণবন্ধু

For faster login or register use your social account.

or

Account details will be confirmed via email.

Reset Your Password