ভ্রমণবন্ধু

বগুড়া; ঐতিহ্যবাহী প্রাচীন জনপদ - Hosted By

Not review yet
2
Add Review Viewed - 281

বগুড়া জেলা বাংলাদেশের রাজশাহী বিভাগের একটি অঞ্চল। এই বগুড়া জেলায় এক সময় গড়ে উঠেছিল ঐতিহ্যবাহী প্রাচীন জনপদ। এখন যাকে আমরা সবাই মহাস্থানগড় নামে চিনি, সেটিই আসলে ছিল একসময়কার প্রাচীন পুন্ড রাজ্যের রাজধানী পুন্ডবর্ধন।

বগুড়া জেলার নামকরণ নিয়ে তেমন একটা মতভেদ নেই। ইতিহাস থেকে জানা যায়, সুলতান গিয়াস উদ্দিন বলবনের ছেলে সুলতান নাসির উদ্দিন বগরা এ অঞ্চলের শাসক ছিলেন প্রায় চার বছর (১২৭৯-১২৮২) সাল পর্যন্ত। পরে তার নামের সাথে মিল রেখে এ অঞ্চলের নাম হয়েছিল বগড়া। ইংরেজি উচ্চারণ ‘বগড়া’ (Bogra) হলেও বাংলায় কালের বিবর্তনে নামটি পরিবর্তিত হয়ে ‘বগুড়া’ শব্দে পরিচিতি পেয়েছে।

ঢাকা থেকে উত্তরবঙ্গের বেশিরভাগ জেলায় যাওয়ার পথে এই বগুড়া জেলাকে পার করতে হয় বলে একে উত্তরবঙ্গের প্রবেশদ্বারও বলা হয়ে থাকে। শিক্ষা ও চিকিৎসা খাতে বগুড়া জেলা বেশ কিছুটা অগ্রগামী। আজিজুল হক কলেজ এর মতো ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে এই জেলায়। তাছাড়া এখানকার চিকিৎসা ব্যবস্থা বেশ মানসম্মত। এই জেলার সিরামিক সামগ্রি বেশ উন্নত মানের, যা রপ্তানি হয়ে থাকে। সিরামিক ছাড়াও এখানকার চাল রপ্তানি হয়।

বগুড়া জেলায় বেশ কিছু ঐতিহ্যবাহী মেলা উদযাপন করা হয়ে থাকে, তেমনি এক মেলা ‘পোড়াদহ মেলা’। ধারণা করা হয় প্রায় ৪০০ বছর আগে থেকে এই মেলা পালিত হয়ে আসছে। প্রতি বছর সন্ন্যাসী পূজা উপলক্ষে এই মেলার আয়োজন হয়। বগুড়া জেলার ইছামতী নদীর তীরে পোড়াদাহ নামক স্থানে এই মেলা বসে। এই মেলা ছাড়াও আরেকটি প্রাচীন মেলা আছে যার নাম কেল্লাপোষী মেলা। এই প্রায় ৪৫৭ বছর আগে থেকে প্রতিবছর জৈষ্ঠ মাসের দ্বিতীয় রবিবার পালিত হয়।

বগুড়া জেলার চিত্তাকর্ষক স্থান বলতে মূলত পুরাকীর্তি স্থানগুলোই। মহাস্থানগড়, ভাসু বিহা্র, ভীমের জাঙ্গাল, যোগীর ভবণ, গোকুল মেধ, নবাব বাড়ী, খেরুয়া মসজিদ দর্শনীয় স্থান হিসেবে গণ্য হয়ে থাকে।

Tags

Add Reviews & Rate

You must be logged in to post a comment.

Sign In ভ্রমণবন্ধু

For faster login or register use your social account.

or

Account details will be confirmed via email.

Reset Your Password